1. admin@aparadhatallasi.com : admin :
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৫:৩২ অপরাহ্ন

রাজশাহীর কাজলায় সড়ক ও জনপথের জায়গা দখলের চেষ্টা

  • আপডেট সময় : রবিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৯২ বার পঠিত

রাজশাহী ব্যুরো:

“এই লোকজন ডাক, মিডিয়াকে ডাক” এমন হুমকি ধামকি দিয়ে গাছ লাগানো বন্ধের নির্দেশ দিচ্ছেন রাজশাহী মহানগরীর কাজলা এলাকার (রেডিও সেন্টারের উত্তর পশ্চিম কর্ণার) লাল মোহাম্মদ এর ছেলে মানিক (৫২) ও ছোট ভাই ইদ্রিস আলী (৫০)।

রবিবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে নগরীর কাজলা মোড়ের পার্শে সড়ক ও জনপথের জমিতে। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, সড়ক বিভাগ রাজশাহীর পক্ষ থেকে ৭০ পিছ মেহগুনি গাছ লাগানো হচ্ছে। সে সময় মানিক ও ইদ্রিস গং জমির মাঝখানে গাছ লাগাতে বাধা দেন। মানিক বলে “এই লোকজন ডাক, মিডিয়াকে ডাক” বলে চিৎকার করছেন। এসময় সেখানে উপস্থিত থাকা সাংবাদিক বলেন, ভাই কি হয়েছে বলেন, আমি সাংবাদিক? এমন প্রশ্ন করতেই ছোট ভাই ইদ্রিস হুমকির সুরে ঐ সাংবাদিককে প্রশ্ন করেন, কে আপনি, কোন মিডিয়াতে কাজ করেন, আপনাকে এখানে কে ডেকেছে? ইত্যাদি প্রশ্ন করতে থাকেন এবং পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে উল্টো সাংবাদিকের ভিডিও করতে থাকেন। এরপর সাংবাদিকের পরিচয় পেতেই আস্তে করে গলার সুর নেমে যায় এবং বলতে থাকেন আমরা গাছ লাগানোতে বাধা দেয়নি।

পরে তথ্য নিয়ে জানা যায়, রাজশাহী – ঢাকা মহাসড়কের পার্শে আরএস খতিয়ান নং ৪, কাজলা মৌজায় (কাজলা মোড়ের পার্শে) সওজ এর খতিয়ানভুক্ত ফাঁকা জায়গায় গাছ লাগাতে গেলে বাধার সৃষ্টি করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা পরিচয়দাতা ইদ্রিস (৫০) ও তার ভাই মানিক (৫৫)। তাদের দাবি পেছনের জমির জন্য সওজের জমির মাঝখান দিয়ে রাস্তা ছেড়ে দিতে হবে।

 

কিন্তু তাদের জমিতে গিয়ে দেখা যায়, উক্ত জমির পুর্ব পার্শ্ব দিয়ে ২০ ফিট চওড়া কার্পেটিং করা রাস্তা রয়েছে। তারপরও জমিটির উত্তর সাইডে ড্রেনের উপর দিয়ে রাস্তার দাবি করে বসছেন। সেখানে উপস্থিত থাকা সওজ এর সার্ভেয়ার মিল্লাত হোসেন তাদের উদ্দেশ্য বলেন, আপনি সিটি কর্পোরেশন থেকে নির্দেশনাপত্র নিয়ে আসেন আমরা রাস্তা ছেড়ে দিব। তিনি আরও বলেন, সওজ এর ২০১৫ সালের ভুমি ব্যবস্থাপনা নীতিমালা অনুযায়ী আপনি রাস্তার জন্য জমি লীজ নিতে পারবেন। যদি আপনি জমি লীজ নিতে পারেন তবে আমরা রাস্তার জন্য জায়গা ছেড়ে দিতে পারবো। এর ব্যাতয় হলে আমরা সওজ এর ২০১৫ সালের ভুমি ব্যবস্থাপনা নীতিমালা অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে বাধ্য হবো। উল্লেখ্য, সেই খালি জায়গার পার্শে সওজ এর একটি কোয়ার্টার রয়েছে।

এরপর সেই রাসিক এর কর্মকর্তা পরিচয়দাতার সাথে কথা বলে জানা গেল তিনি রাসিক এর ২৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ের সচিব হিসেবে কর্মরত আছেন। সামনের জায়গাটি যদি আপনার হতো, আপনি কি করতেন? এমন প্রশ্ন করতেই তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান এবং অপ্রাসঙ্গিক কথা বলতে থাকেন। তার এমন দাবিতে বোঝাযায়, সরকারের এই জমিটি জবর দখলের চেষ্টা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ দৈনিক অপরাধ তল্লাশি

Theme Customized By Shakil IT Park