1. admin@aparadhatallasi.com : admin :
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সাতকানিয়ায় ১৭ টাকা পাওনাকে কেন্দ্র করে ছু রিকাঘা তে যুবককে হ ত্যা রংপুর বিভাগের ১৯ উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত রানীশংকৈলে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের সমাপনি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত ৫৩বছর বছর ধরে ঘাস বেচেই সংসার চলে ভূমিহীন অমলের ফুলবাড়ীতে ই‌রি-বোরো ধান সংগ্রহে উন্মুক্ত লটারি পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ফার্মেসীতে ফেনসিডিল সেবনের সময় পুলিশের হাতে আটক দুই ফুলবাড়ীতে রেমালের প্রভাব: পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষক তীব্র গরমে স্বস্তি দিচ্ছে তালের শাঁস ফুলবাড়ীতে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদ্বোধন মাদারীপুরে সমাজসেবার দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

মন্ত্রীকে পরাজিত করে এমপি হলেন সাবেক ইউপি  চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম

  • আপডেট সময় : সোমবার, ৮ জানুয়ারি, ২০২৪
  • ১৪২ বার পঠিত

মো. মাইনুল ইসলাম,সাভার প্রতিনিধিঃ

ঢাকা জেলার অন্যতম শিল্পাঞ্চল হিসেবে পরিচিত ও আলোচিত আসন ঢাকা-১৯ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা প্রায় পৌনে আট লক্ষ। আর এই সাভার-আশুলিয়া আসনে নৌকার বিজয় আর ধরে রাখতে পারলেন না দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান।  সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছে পরাজিত হলেন দুই বারের সাংসদ। একই সাথে সাভার-আশুলিয়াবাসী নতুন মুখ হিসেবে ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামকে বেছে নিল সাভার আশুলিয়া বাসী।

বিভিন্ন তথ্য সূত্রে ধারণা করা হয়েছিল ঢাকা-১৯ আসনে এবার লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি।  ঈগল আর ট্রাকের মধ্যে যে কাউকে বেছে নিতে পারেন সাভার আশুলিয়া বাসী। আর এ যুদ্ধে এগিয়ে ছিল ঈগল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক সাংসদ তালুকদার মো. তৌহিদ জং মুরাদ ও ট্রাক প্রতীক নিয়ে লড়াই করা আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের মধ্যে।

২৯২টি কেন্দ্রের প্রাপ্ত ফলাফল নির্বাচনে সাইফুল ইসলাম ৮৪ হাজার ৪১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তালুকদার মো. তৌহিদ জং মুরাদ পেয়েছেন ৭৬ হাজার ২০২ ভোট। ৮ হাজার ২১০ ভোট বেশি পেয়ে সাইফুল ইসলাম বিজয়ী হয়েছেন।

এ দুজনের ভোটের ব্যবধান কাছাকাছি হলেও নৌকার প্রার্থী এনামুর রহমান ছিলেন অনেক দূরে। ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী সর্ব মোট ভোট পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৩৬১টি। সাইফুল ইসলামের থেকে তিনি প্রায় ২৮ হাজার ভোট ব্যবধান রয়েছেন।

মূলত, তার প্রতিশ্রুত অনুযায়ী অনেক কাজ করতে না পারা, আওয়ামী লীগের সঙ্গে যোগাযোগ না থাকার পাশাপাশি স্থানীয়দের সাথেও যোগাযোগ ছিল না এনামুরের। এছাড়া, তার বাড়ি নরসিংদীতে হওয়ায় আঞ্চলিকতাও একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্ণায়ক হয়ে দাঁড়ায় এবারের ভোটে। ফলে অনেক নেতাকর্মী ও সমর্থক এবার দুই স্বতন্ত্র প্রার্থীর দিকে ঝুঁকে যাওয়ায় আগেই কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি ছিল নৌকা। শেষ পর্যন্ত জনগণের বিচারে তিনি বিজয় ছিনিয়ে আনতে পারলেন না। আর

অন্যদিকে স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুলও সংসদ সদস্য হতে সেই পদ ছেড়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। তার ধামসোনা ইউনিয়ন ভোটার সংখ্যার দিক দিয়ে সবচেয়ে এগিয়ে। এই ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা প্রায় পৌনে দুই লাখ, আর সাভার আশুলিয়া পুরো নির্বাচনি এলাকায় ভোটার সংখ্যা সাড়ে সাত লাখের কিছু বেশি।

এই সুবিধাকে কাজে লাগিয়েছেন নবনির্বাচিত ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। পাশাপাশি আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও তিনি নানা ধরনের  সুবিধা পেয়েছেন। আশুলিয়ার বাইরে পাথালিয়া, শিমুলিয়া, ধামসোনা, ইয়ারপুর ইউনিয়নের পাশাপাশি সাভারের একাংশের নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচার চালিয়েছেন তিনি।

ঢাকা-১৯ আসন সাভার উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। জাতীয় সংসদের গুরুত্বপূর্ণ এই আসনটিতে মোট ভোটার ৭ লাখ ৫৬ হাজার ৪১৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৪৬৮ জন, নারী ভোটার ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৯৩৫ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) ১৩ জন। আসনটিতে সর্বমোট ভোটকেন্দ্র ২৯২টি ও ভোটকক্ষ ১ হাজার ৭০৫টি।

এবারের নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ২ লাখ ২২ হাজার ৬৫০ টি। এখন সাভার-আশুলিয়া বাসী এই নবনির্বাচিত সাংসদের কাছে ভালো কিছু প্রত্যাশা করেন।

বার্তা প্রেরকঃ

মো.মাইনুল ইসলাম সাভার ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ দৈনিক অপরাধ তল্লাশি

Theme Customized By Shakil IT Park